আগ্রহ ও মনোযোগের সম্পর্ক কি আলোচনা করো ?

আগ্রহ ও মনোযোগের সম্পর্ক কি অথবা “ আগ্রহ হল সুপ্ত মনোযোগ “ ব্যাখ্যা করো_
আগ্রহ ও মনোযোগের সম্পর্ক কি অথবা “ আগ্রহ হল সুপ্ত মনোযোগ “ ব্যাখ্যা করো_

আগ্রহ ও মনোযোগের সম্পর্ক কি  ? অথবা   “ আগ্রহ হল সুপ্ত মনোযোগ “ ব্যাখ্যা করো?

আগ্রহ ও মনোযোগের সম্পর্ক কি । আগ্রহের গুরুত্বপূর্ণ দুটি উপদান হল আগ্রহ ও মনোযোগ  । আগ্রহের সঙ্গে মনোযোগ অঙ্গাঅঙ্গি ভাবে জড়িত। আগ্রহ ছাড়া মনোযোগ সম্ভব নয়। আগ্রহের অর্থ হল উদাসীনতার অভাবের সঙ্গে সঙ্গে ইচ্ছা, অনুভুতি সংযুক্তিকরণ হয়। অর্থাৎ আগ্রহ আমাদের ইচ্ছা শক্তিকে জাগিয়ে তোলে, তার ফলেই মনোযোগ সৃষ্টি হয়। তাই যার প্রতি আমাদের আগ্রহ বেশি থাকে তার প্রতি মনোযোগী হই।

মনবিদ ম্যাকডুগাল বলেছেন, “আগ্রহ হল সুপ্ত মনোযোগ এবং মনোযোগ হল ক্রিয়াশীল অনুরাগ।“

মনোযোগের ক্ষেত্রে যে মানসিক সক্রিয়তা কাজ করে তাকে আগ্রহ বলে। আগ্রহ হল মনোযোগের ব্যক্তিগত বা অভ্যন্তরীণ নির্ধারক। মানসিক সংগঠনের নিস্ক্রিয় দশাকে আগ্রহ বলে আর সক্রিয় দশাকে মনোযোগ বলে।

আরো পড়ুন   মনোযোগ কাকে বলে ? শিক্ষাক্ষেত্রে মনোযোগের গুরুত্ব আলোচনা করো ?

আগ্রহ ও মনোযোগের সম্পর্ক হলঃ 

আগ্রহ ও মনোযোগের মধ্যে সম্পর্ক যেসমস্ত দিকগুলি দিয়ে গড়ে উঠেছে সেগুলি হল-

১. উদ্দেশ্যমুখীঃ

আগ্রহ শিক্ষার্থীকে উদ্দেশ্যমুখী করে গড়ে তোলে। ওই উদ্দেশ্য নির্দিষ্ট  বিষয়বস্তুর প্রতি শিক্ষার্থীকে মনোযোগী করে।

২. নির্বাচনধর্মীঃ

মনোযোগ মূলত নির্বাচনধর্মী। আগ্রহই মনোযোগকে নির্বাচন করতে সাহায্য করে। অর্থাৎ আগ্রহের ফলে ব্যক্তি বস্তু নির্বাচন এবং সে তার প্রতি মনোযোগী হয়।

৩. গতিশীল মনোভাবঃ

আগ্রহ হল গতিশীল মনোভাব। যে বিষয় বস্তু ব্যক্তির মনে আগ্রহ জাগিয়ে তোলে তার প্রতি সে মনোযোগী হয়।

৪. দীর্ঘস্থায়ী মনভাবঃ

আগ্রিহ হল দীর্ঘস্থায়ী মানসিক সংগঠন, যা মনোযোগ নির্ধারণ করে। অর্থাৎ আগ্রহের ফলে ব্যক্তি কোন বিষয় বা বস্তুর প্রতি মনোযোগ দিতে পারে।

৫. উদ্দীপনাঃ

আগ্রহ হল এমন একটি মানসিক উদ্দীপনা, যা ব্যক্তিকে কোনো বিষয়বস্তুর প্রতি মনোযোগী করে তোলে।

৬. সক্রিয়তাঃ

মনোযোগের প্রধান চালক হল আগ্রহ। আগ্রহ কোনো বিষয় জানার জন্য উৎসাহ যোগায় । তখন মনোযোগ জ্ঞান মূলক অভিজ্ঞতা অর্জনে মানসিক সক্রিয়তা হিসাবে কাজ করে। সেক্ষেত্রে আগ্রহ মনোযোগকে শক্তি যোগায়। ফলে যার প্রতি আমাদের আগ্রহ আছে তার প্রতি মনোযোগ সৃষ্টি হয়।

৭.  ক্রিয়াশীলঃ

ক্রিয়াশীলতার  দিক থেকেও আগ্রহ ও মনোযোগের  সম্পর্ক আছে । যে মানসিক সংগঠন মনোযোগকে সক্রিয় হতে সাহায্য করে তা হল আগ্রহ । কোনো বস্তুর প্রতি আগ্রহ  আছে – এই কথাটির অর্থ হল আমরা বস্তুটির প্রতি মনোযোগ দিতে প্রস্তুত । আবার, কোনো বস্তুর প্রতি মনোযোগ  আছে- এই কথাটির দ্বারা মানসিক প্রবণতার ক্রিয়াশীল দিকের প্রকাশ পায়। এই ক্ষেত্রে মনোযোগ হল আগ্রহের ক্রিয়াশীল দিক।

আরও পড়ুন আগ্রহ কী বা কাকে বলে ? শিক্ষা ক্ষেত্রে আগ্রহের ভূমিকা আলোচনা করো ?

সুতরাং বলা যায় প্রবৃত্তির তাড়নায় যখন কোনো বিষয়ের প্রতি আগ্রহ জন্মায়, তখন চেতন স্তরের কেন্দ্রে কোন বিষয় অবস্থান করবে তা আগ্রহই নির্বাচন করে। যে প্রক্রিয়ায় আগ্রহ সক্রিয় হয়ে ওঠে সেই প্রক্রিয়ায় মনোযোগ সৃষ্টি হয়। তাই  মনোবিদ ম্যাকডুগাল মনোযোগকে বলেছেন “ ক্রিয়াশীল অনুরাগ “ এবং আগ্রহকে বলেছেন “ সুপ্ত মনোযোগ “ । মনোবিদ রস বলেছেন, -“ একই মুদ্রার দুটো পিঠ হল – আগ্রহ ও মনোযোগ ।“  আগ্রহ ও মনোযোগ উভয়ই মনের সংগঠিত প্রবণতাকে বোঝায় ।