মনোযোগ কাকে বলে ?  মনোযোগের নির্ধারক  বা শর্ত গুলি আলোচনা করো ?

আগ্রহ ও মনোযোগের সম্পর্ক কি
আগ্রহ ও মনোযোগের সম্পর্ক কি

মনোযোগ কাকে বলে ?  মনোযোগের রনির্ধাক  বা শর্ত ( Determinants or Condition of Attention )  গুলি আলোচনা করো ?

মনোযোগের নির্ধারক  বা শর্ত । সাধারণভাবে মনোযোগ শব্দের অর্থ হল কোনো কিছুর সঙ্গে মনকে একান্ত ভাবে যুক্ত করা। অর্থাৎ কোনো বস্তু বা ধারনার সঙ্গে মনকে একক ভাবে সচেতন হওয়াকেই সাধারণ অর্থে বলা হয় মনোযোগ।

মনোবিদ টিচেনার (Titchener) বলেছেন, – “মনোযোগ হল মনের অনুভুতিমূলক দিক”

মনবিদ ডামভিল (Dumville)  বলেছেন, -“ মনোযোগ হল অন্য কোনো বিষয়ের পরিপ্রেক্ষিতে নির্দিষ্ট বিষয় বা বস্তুতে চেতনাকে কেন্দ্রীভূত করা।“

মনবিদ স্টাউট (Stout) বলেছেন, – “মনোযোগ প্রক্রিয়া যত বেশি হবে , জ্ঞান তত বেশি হবে।“ অর্থাৎ এটি হল এক ধরণের মানসিক সক্রিয়তা যা জ্ঞানকে নির্ধারণ করে।

সুতরাং সংজ্ঞা গুলি থেকে যে গুরুত্বপূর্ণ বিসয়গুলি পাওয়া যায় তা হল-

  • এটি একটি ক্রিয়া , ক্রিয়ালব্ধ ফল নয়।
  • এর ফলে ব্যক্তি সচেতন হয়।
  • অনেক গুলি বিষয়ের মধ্য থেকে ব্যক্তি একটি নির্দিষ্ট বিষয়ের প্রতিই মনোযোগী হতে পারে।
  • এখানে চেতনা কেন্দ্রীভূত হয়, সেই বিষয় সম্পর্কে ব্যক্তির সম্পূর্ণ উপলব্ধি হয়।

 মনোযোগের নির্ধারক  বা শর্ত (Determinants or  Condition of Attention):

 মনোযোগের সময় এমন কতকগুলি বিষয় আছে যা আমাদের মনকে কোনো কিছুর সুগে নিবেশ করে দেয়। তাদের বলা হয় মনোযোগের নির্ধারক  বা শর্ত। এই শর্ত গুলিকে দুই  ভাগে ভাগ করা যায়।

১. বস্তুগত বা বাহ্যিক নির্ধারক (Objective/External Determinants)

২. ব্যক্তিগত বা মনোগত বা অভ্যন্তরীণ নির্ধারক (Subjective / Internal Determinants)

বস্তুগত বা বাহ্যিক নির্ধারক (Objective/External Determinants)

 বস্তুর বিশেষ কোনো ধর্ম অন্য অন্য কোনো বস্তু থেকে আলাদা ভাবে আমাদের চেনার স্তরে মনোযোগের প্রক্রিয়াকে নিয়ন্ত্রণ করে তাকেই বস্তুগত নির্ধারক বলে । যেমন –

১. তীব্রতাঃ উদ্দীপকের তীব্রতা আমাদের মনোযোগ নির্ধারণ করে। যেমন, উজ্জ্বল আলো, তীব্র গন্ধ, রঙিন ছবি, প্রচণ্ড বাতাস, প্রচণ্ড শব্দ।

২. গতিশিলতাঃ গতিশীল বস্তু স্থির বস্তু অপেক্ষা সহজে ও দ্রত আমাদের মনোযোগ আকর্ষণ করে।

৩. আকার বা আকৃতিঃ বৃহৎ আকারের বস্তু সাধারণত আমাদের মনোযোগ সহজে আকৃষ্ট করে। যেমন, সংবাদপত্রের বড় বড় হেডলাইন আমদের সবার আগে চোখে পরে।

৪. নতুনত্বঃ বিষয় -বস্তুর মধ্যে নতুনত্ব বা অভিনবত্ব কিছু থাকলে তা সহজে মনোযোগ আকর্ষণ করে।

৫. পুনরাবৃত্তিঃ কোনো বিষয় যদি বার বার পুনরাবৃত্তি ঘটতে থাকে তাহলে সেদিকে বেশি মনোযোগ আকৃষ্ট হয়।

৬. আকস্মিকতাঃ কোন উদ্দীপকের আকস্মিকতা আমাদের মনোযোগ আকৃষ্ট করে।

৭. গোপনীয়তাঃ যেকোনো গোপন জিনিসের প্রতি আমাদের মনোযোগ বেশি আকর্ষণ হয়।

 

ব্যক্তিগত বা মনোগত বা  অভ্যন্তরীণ নির্ধারক (Subjective / Internal Determinants)

মনোযোগের কারণ যখন ব্যক্তির মধ্যে নিহিত থাকে তখন তাকে ব্যক্তিগত নির্ধারক বলে । কিংবা যে সমস্ত মানসিক অবস্থা আমাদের মনোযোগকে আকর্ষণ করে তাকে মনোগত নির্ধারক বলে। সেগুলি হল-

১. আগ্রহঃ যে বিষয়ের প্রতি আগ্রহ বেশি তার প্রতি আমদের মনোযোগ আকৃষ্ট হয়। যেমন, যে খেলা ভালবাসে সে সংবাদপত্রে খেলার পাতাটাই আগে দেখবে।

২. প্রবৃত্তিঃ প্রবৃত্তির তাড়নায় আমরা বিশেষ কোনো বস্তুর প্রতি মনোযোগ দিয়ে থাকি। যেমন, পিপাসা পেলে জলের প্রতি মনোযোগ যায়।

৩. আবেগঃ আবেগের তাড়নায় কোনো বিষয় বা ব্যক্তির প্রতি আমরা মনোযোগী হই।

৪. মেজাজঃ সাধারণত আমাদের মেজাজ খারাপ থাকলে অন্যের মনোযোগ আকর্ষণ করে ।

৫. সেন্টিমেন্ট: সেন্টিমেন্টের ফলে মানুষ বিশেষ বিশেষ বস্তুর প্রতি মনোযোগী হয়।

৬. মনোভাবঃ অনেক সময় অতীত অভিজ্ঞতার ফলে বস্তু বা বিষয়কে কেন্দ্র করে বিশেষ ধরণের মনোভাব গড়ে ওঠে। ফলে যেই মনোভাবই গড়ে উঠুক না কেন আমরা তার প্রতি মনোযোগী হই।

৭. অভ্যাসঃ অভ্যাসের কারণে অনেকসময় আমাদের মনোযোগ আকৃষ্ট করে। যেমন সকাল বেলায় উঠেই চায়ের প্রতি মনোযোগী হওয়া।

সুতরাং বলা যায় মনোযোগ ব্যক্তির জীবনে এক সক্রিয় মানসিক প্রক্রিয়া। আত্মপ্রচেস্টা ছাড়া সক্রিয় শিখন হতে পারে না । এই আত্মপ্রচেস্টামূলক শিখন মনোযোগের দ্বারা নির্ধারিত হয়।